বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF

বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF Download

বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF Download for free using the direct download link given at the bottom of this article.

বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF Details
বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি
PDF Name বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF
No. of Pages 4
PDF Size 0.87 MB
Language English
CategoryEnglish
Source pdffile.co.in
Download LinkAvailable ✔
Downloads17

বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি

Hello friends, today we are going to upload বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF for all of you. The one who protects from all dangers or the one who destroys dangers is the one who is in danger. The one who is Durga is the one who is in danger. She is known as Kaushiki Devi in ​​the Puranas. Again she is Jayadurga.

The goddess originated from the cell of Lord Shiva’s half-goddess Parvati – hence Kaushiki. According to the Puranas, the gods were defeated by two demons named Shumbha and Nishumbha and went to the Himalayas to worship Mahamaya. At that time Bhagwati Parvati was passing through that place. This goddess killed demons named Shumbha and Nishumbha in battle.

This goddess gave Advaita knowledge to the enchanted Shumbhasura. According to another mythological legend, Lord Mahadev once ridiculed Goddess Parvati as ‘Kali’. The goddess became angry and abandoned her “black” form through austerities. That Krishnavarna Swarup Devi is the goddess Jayadurga or Kaushiki Devi, Bipadatarinidurga created from the body of the goddess Parvati.

বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF

মাসি পূণ্যতমে

বিপ্রমাধবে মাধবপ্রিয়ে।

ন বম্যাং শুক্লপক্ষে চ

বাসরে মঙ্গল শুভে।।

সর্পঋক্ষে চ মধ্যাহ্নে

জানকী জনকালয়ে।

আবির্ভূতা স্বয়ং দেবী

যোগেষু শোভনেষুচ।।

নমঃ সর্ব মঙ্গল্যে

শিবে সর্ব্বাথ্যসাধিকে

শরণ্যে ত্রম্বক্যে গৌরী

নারায়ণী নমস্তুতে।।

নিউজ১৮ বাংলায় সবার আগে পড়ুন ব্রেকিং নিউজ। থাকছে দৈনিক টাটকা খবর, খবরের লাইভ আপডেট। সবচেয়ে ভরসাযোগ্য বাংলা খবর পড়ুন নিউজ১৮ বাংলার ওয়েবসাইটে।

বিপত্তারিণী পুজোর বিধি নিষেধ PDF

  • বিপত্তারিণী পুজোর আগের ও পুজোর দিন কখনই আমিষ খাবেন না। আগের দিন নিরামিষ এবং পুজো শেষে ১৩ টা লুচি ও ১৩ রকমের ফল প্রসাদ হিসাবে গ্রহণ করুণ। তবে চালের জিনিস খাওয়া একেবারেই নিষেধ।
  • এই পুজোর দিন পরিবারের কোনও সদস্যের মদ্যপান করা এড়ানো উচিত।
  • পুজোর চলাকালীন কারও সঙ্গে কথা বলবেন না। এর ফলে দেবী রাগান্বিত হতে পারেন এবং অর্থ সম্পর্কিত সমস্যা শুরু হয়। সেই সঙ্গে ব্যবসায় ক্ষতি, বাড়িতে অসুস্থতা দেখা দিতে পারে।
  • বিপত্তারিণী পুজোর সময় কখনই কাউকে অপমান করবেন না। এমনকি এদিন কোনও মহিলার সম্পর্কে কুরুচিকর কথাও বলবেন না। এতে মা লক্ষ্মী ক্রুদ্ধ হন।
  • এদিন পরিবারের নিকট সদস্য ছাড়া কোনও ব্যক্তিকে টাকা দেবেন না ও নিজেও ধার করবেন না। মনে করা হয় এই সময় প্রদত্ত অর্থ ফেরত আসে না। সেই সঙ্গে, দেবী রুষ্ট হন এবং সম্পর্কও নষ্ট হয়ে যায়।
  • কোনও অপরিচ্ছন্ন স্থানে বিপত্তারিণী পুজো করবেন না। নয়তো ঘরের সুখ ও শান্তি নষ্ট হয়।
  • বিপত্তারিণী পুজোর দিন কাউকে চিনি দেবেন না। জ্যোতিষশাস্ত্র অনুযায়ী, চিনির শুক্র এবং চন্দ্রের সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে। অন্যদিকে শুক্র বস্তুগত সুখের কর্তা। তাই এদিন চিনি দিলে শুক্র দুর্বল হয় এবং সংসারে অশান্তির পাশাপাশি আর্থিক সংকট দেখা দেয়।

বিপত্তারিণী পুজো ২০২১

আগামী ১৩ জুলাই (২৩ আষাঢ়), মঙ্গলবার এবং ১৭ জুলাই (৩২ আষাঢ়) শনিবার পালন করা হবে  বিপত্তারিণীর ব্রত।

বিপত্তারিণীর মন্ত্র:

মাসি পূণ্যতমেবিপ্রমাধবে মাধবপ্রিয়ে। ন বম্যাং শুক্লপক্ষে চবাসরে মঙ্গল শুভে। সর্পঋক্ষে চ মধ্যাহ্নেজানকী জনকালয়ে। আবির্ভূতা স্বয়ং দেবীযোগেষু শোভনেষুচ। নমঃ সর্ব মঙ্গল্যেশিবে সর্বার্থসাধিকে শরণ্যে ত্রম্বক্যে গৌরী নারায়ণী নমস্তুতে।।

You can download বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF by clicking on the following download button.


বিপদতারিনী পূজা পদ্ধতি PDF Download Link